स्वर्ग पर मेरे विचार - Mala Mandel

“ ইউটোপিয়া “ মানে হল কাল্পনিক জগত বা “কল্পলোক । যা এক কথায় বলা যায় “ সব পাওয়ার জাগত “ । কিন্তু কি সেই “ সপ্নলোক “ ? এ কি সত্যি আছে ? একজন সাধারণ ভারতীয় হিসাবে আমি বলব যে একটা থাকার জায়গা, পরিধান বস্ত্র এবং রোজ দুবেলা খাবার জোগাড় করাটাই যখন একটা যুদ্ধ হয়ে দাঁড়ায় তখন “ইউটোপিয়া “ একটা বাস্তবিক ই সপ্ন বইকি । কিন্তু সপ্নই মানুষ কে প্রগতির রাস্তা দেখায়। তাই সপ্নকে সম্বল করেই এগিয়ে চলার রাস্তা খুঁজতে হবে আমাদের । খুব গভীর ভাবে পযবেক্ষণ করলে দেখা যায় যে আমাদের মধ্যে না পাওয়ার চাহিদাগুলোই "সপ্নলোক" এর রুপ নেয় । তাই সত্যি যদি আমাদের সাধারণ মানুষের মধ্যে চাহিদাগুলো নিয়ে বিশ্লেষণ করি এবং ধীরে ধীরে তাকে বাস্তব রূপ দেওয়ার চেষ্টা করি , তাহলে সত্যি একদিন “ ইউটোপিয়া “ জগতে পৌঁছানো সম্ভব।

এখন আমাদের ১২০ কোটি জনসঙ্খা বিশিষ্ট দেশ ভারত , তার ওপর যদি “ ইউটোপিয়া “ নিয়ে চরচা ও বিশ্লেষণ করা হয় , তাহলে প্রথম যেটা সবার মনে আসবে তা হল বাসস্থান । পৃথীবির অন্যান্য দেশের মতন ভারতেয় বাসস্থান যোগ্য জায়গাভব-এর জন্য অসংখ্য মানুষ গৃহহীন । স্থান, কাল, পাত্র নিড়বিসশেষে গৃহহীনতার কারন ভিন্ন হতে পারে । পৃথীবির প্রায় সব দেশের মতন "গৃহহীনতা" ভারতের এক বিশেষ অস্বস্তির কারণ । ১৪০ কোটির জনসংখ্যার দেশ ভারত , পৃথীবির মধ্যে সপ্তম স্থান অধিকার করে আয়তন নিরীক্ষ্যে । অথচ জনসংখ্যার নিরীক্ষ্যে , চীনদেশের পরই ভারতের স্থান অথাৎ সারা পৃথীবির মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে । সুতরাং জনসংখ্যার নিরীক্ষ্যে স্থানাভাবের অসমঞ্চতা যে একটা থাকবেই , সেটা সহজেই অনুভব কর যায় ।

Mícheál Æsír